পড়াশোনা

হোটেল কক্ষে আটকে কিশোরকে নির্যাতন

পটুয়াখালীর বাউফলে টাকার জন্য মো. রিফাত হোসেন (১৭) নামে এক কিশোরকে ডেকে নিয়ে আবাসিক হোটেলের একটি কক্ষে আটকে হাত-পা বেঁধে ও মুখে কাপড় ঢুকিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে। পুলিশ অচেতন অবস্থায় রিফাতকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলা সদরের আল আমিন নামে একটি আবাসিক হোটেলের একটি কক্ষে ওই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আবুল বশার ওরফে রনি (২৮) নামে বখাটে এক মাদকসেবী যুবককে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

আহত রিফাত উপজেলার নুরাইনপুর নেছারিয়া ফাজিল মাদরাসার আলিম দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তার বাড়ি নুরাইনপুর গ্রামে। বাবার নাম মো. নূরুল আমিন খান। গ্রেপ্তার হওয়া আবুল বশার হলেন আল আমিন হোটেলের মালিক মো.জাহাঙ্গীর মিয়ার ছেলে। তাঁর বাড়ি বাউফল পৌরসভার আট নম্বর ওয়ার্ডের বাংলা বাজার গ্রামে। তিনি হোটেলেই থাকেন।

স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বখাটে জীবন-যাপনের কারণে স্ত্রী তালাক দিয়ে চলে গেছে। তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক মাদক ও অস্ত্র মামলা বিচারাধীন রয়েছে। রিফাতের বড় বোন সূর্য্যমনি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত সদস্য মোসা. রেকসোনা বেগম (৪০) বলেন, তাঁর ছোট বোন নাজনিন নাহার (২৮) ছিলেন অন্তঃসত্ত্বা।

প্রসব ব্যাথা শুরু হলে নাজনিনকে নিয়ে তাঁরা (রেকসোনা, নাজনিনের স্বামী কামাল হোসেন, রিফাতসহ কয়েকজন স্বজন) রোববার রাত ১০ টার দিকে উপজেলা সদরের বাউফল হেলথ কেয়ার এ- ক্লিনিকে নিয়ে ভর্তি করান। রাত ১১ টার দিকে সামনের একটি খাবার হোটেলে ভাত খাওয়ার জন্য যান রিফাত। ফিরতে দেরি দেখে খুঁজতে বের হন বড় বোন রেকসোনাসহ স্বজনেরা। রিফাতের ফোনে কল করলে কান্নার আওয়াজ পান। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানান।

অনেক খোঁজাখুঁজির পর আল-আমিন হোটেলের একটি কক্ষ থেকে রাত ১২ টার দিকে পুলিশ অচেতন অবস্থায় রিফাতকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান এবং এ ঘটনায় হোটেল মালিকের বখাটে ছেলে আবুল বশারকে আটক করে। রোববার দিবাগত ভোর রাত চারটার দিকে রিফাতের বোন নাজনিন একটি মৃত সন্তান প্রসব করেন।

আহত রিফাত বলেন, রাত সাড়ে ১১ টার দিকে বাউফল হেলথ কেয়ার এ- ক্লিনিকের পূর্ব পাশে গুলশান সড়কের সামনে পৌঁছালে তাকে এক ব্যক্তি (আবুল বশার) ডেকে নিয়ে যান। আমার বোনের অসুস্থতার কথা বললেও তিনি শুনেননি। এক পর্যায়ে আল আমিন হোটেলের একটি কক্ষে নিয়ে দরজা আটকে দিয়ে বলেন, তোর কাছে কি আছে? কয় টাকা আছে? সব দে- এই বলে হাতুড়ি দিয়ে বুকে আঘাত করলে তিনি পড়ে যান। এরপর হাত-পা বেঁধে ও মুখে কাপড় ঢুকিয়ে নির্যাতন করে।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.মোস্তাফিজুর রহমান সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,‘এ ঘটনায় আহত রিফাতের বড় বোন রেকসোনা বাদী হয়ে আবুল বশারের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। আবুল বশারকে গ্রেপ্তার করে আজকে (গতকাল সোমবার) আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, আবুল বশার মাদকসহ একাধিক মামলার অভিযুক্ত আসামি।

কৃষ্ণ কর্মকার, বাউফল প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button