দেশবাংলা

ক্রিকেট ব্যাট হতে পারে অর্থনীতির চালিকাশক্তি

পিরোজপুরের নেছারাবাদে গড়ে উঠেছে দুই শতাধিক ক্রিকেট ব্যাট তৈরির কারখানা। এর মাধ্যমে সৃষ্টি হয়েছে কয়েক হাজার নারী পুরুষের কর্মসংস্থান। আর উপজেলার বিভিন্নস্থানে বিশ্বমানের ক্রিকেট ব্যাট তৈরি হলেও, নানামুখী সমস্যায় জর্জরিত হয়ে পড়েছে এ শিল্পটি। ফলে, এটিকে টিকিয়ে রাখার জন্য সরকারের পৃষ্টপোষকতা দাবি, এর সাথে সংশ্লিষ্টদের।

১৯৯০ সালের কিছু আগে পিরোজপুরের নেছারবাদের উড়িবুনিয়া গ্রামের আব্দুল লতিফ বেপারী নামে এক ব্যক্তি ঢাকা থেকে ক্রিকেট ব্যাট তৈরির কাজ শেখেন। এরপর, গ্রামের বাড়িতে ফিরে ১৯৯২ সালে নিজেই ব্যাট তৈরির কাজ শুরু করেন। পরবর্তীতে তার শ্রমিকরাই বিভিন্ন গ্রামে গড়ে তোলেন, ক্রিকেট ব্যাট তৈরির কারখানা।

নেছারাবাদে দুই শতাধিক কারখানায় ক্রিকেট ব্যাট তৈরি হয়। স্থানীয়ভাবে সংগ্রহ করা কদম এবং আমড়া কাঠ থেকে তৈরি ক্রিকেট ব্যাটের মূল কাজটি করেন পুরুষরা। আর রং করা এবং স্টিকার লাগানোসহ অন্যান্য কাজগুলো মূলত নারীরাই করেন।

বিগত দিনে সুন্দরবন থেকে গেওয়া কাঠ সংগ্রহ করে, সেগুলো দিয়ে ক্রিকেট ব্যাট তৈরি করা হতো। কিন্তু সরকার গেওয়া কাঠ সংগ্রহ বাতিল করায়, বিপাকে পড়েছেন এর সাথে সংশ্লিষ্টরা। পিরোজপুরের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা এ শিল্পের মানোন্নয়নে সরকারের যথাযথ পদক্ষেপ চাইছেন ক্রিড়ামোদীরা।

আর সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, সরকারের সার্বিক সহযোগীতা পেলে তারা রপ্তানী উপযোগী মানসম্মত ক্রিকেট ব্যাট তৈরি করতে পারবেন।

ইমাম হোসেন মাসুদ, পিরোজপুর প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close