দেশবাংলা

সাবমেরিন ক্যাবলে বিদ্যুতায়ন শরীয়তপুরের তিনটি ইউনিয়ন

পদ্মা নদীর তলদেশ দিয়ে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে, শরীয়তপুরের দূর্গম চরের তিনটি ইউনিয়ন বিদ্যুতায়ন করা হয়েছে। এতে, অন্ধকার থেকে আলোয় ফিরলো, নদী বেষ্টিত  ২০ হাজার পরিবার।

ফলে, শিক্ষা স্বাস্থ্য, অর্থনীতিসহ জীবনযাত্রা পাল্টে যাওয়ার স্বপ্ন দেখছেন চরাঞ্চলের মানুষ। এদিকে, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ বিতরণের জন্য, নওপাড়ায় একটি সাবস্টেশন তৈরির কাজ চলছে বলে জানালেন, সংশ্লিষ্টরা।

শরীয়তপুরের মুল ভূমি থেকে বিচ্ছিন্ন চরআত্রা, নওপাড়া ও কাচিকাটা ইউনিয়ন। এ তিনটি ইউনিয়নে বসবাস করেন, অন্তত ৮০ হাজার মানুষ। কিন্ত পদ্মানদী বেষ্টিত হওয়ায় তারা কখনও বিদ্যুৎ পাবার কথা কল্পনাও করতে পারেনি। গত নির্বাচনে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়ার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে উদ্যোগ নেয় সরকার।

প্রকল্পের অংশ হিসেবে শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ওই তিনটি ইউনিয়নের কার্যক্রম মুন্সিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে হস্তান্তর করে। ২০১৯ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের অনুমোদনের ভিত্তিতে কাজ শুরু করেন, মুন্সিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি।

গত ১৫ ফেব্রুয়ারী এ সংযোগ উদ্বোধন করেন, পানি সম্পদ উপমন্ত্রী। বিদ্যুৎ পেয়ে খুশি এ এলাকার মানুষ। আগামী মার্চ মাসের মধ্যে এ এলাকায় একটি সাব-স্টেশন চালুর ঘোষণা দিয়েছেন আরইবির কর্মকর্তারা।

মুজিব বর্ষেই এ চরের প্রতিটি বাড়িতে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়ার আশ্বাস দিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামূল হক শামীম।

বিদ্যুতায়নের পাশাপাশি এ চরের বাসিন্দাদের শিক্ষা,স্বাস্থ্য,যোগাযোগ ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে সরকার, প্রয়োজনীয় কর্মসূচি নেবে, প্রত্যাশা স্থানীয়দের।

 নয়ন দাস, শরীয়তপুর প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close