বিশ্ববাংলা

মালয়েশিয়ায় মৃত্যুর সাথে লড়ছেন এক বাংলাদেশি

ভাগ্য পরিবর্তনের আশায় মালয়েশিয়া পাড়ি জমিয়েছিলেন পাবনা জেলার আব্দুল হালিম। ২০০৭ সালের কলিং ভিসায় মালয়েশিয়া যান তিনি। কোম্পানী ভালো না হওয়ায় ঠিকমতো বেতনও পেতেন না। চলতি মাসের প্রথম দিকে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

বর্তমানে দেশটির একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আব্দুল হালিম। আর এজন্য প্রয়োজন প্রচুর টাকা, যা তার পরিবারের পক্ষে একেবারেই অসম্ভব।

আব্দুল হালিমের বাড়ি পাবনা জেলার আটঘড়িয়া থানার শিবপুর গ্রামে। ভাগ্যের চাকা ঘোরাতে ২০০৭ সালে কলিং ভিসায় মালয়েশিয়া যান তিনি। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে ব্রেইন স্ট্রোক করেন হালিম। বর্তমানে মালয়েশিয়ার পুসাত পেরুবাতান ইউনিভার্সিটি কেবাংসান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।

১ম ধাপে অপারেশন করার পর কোন উন্নতি না হওয়ায় ২য় ধাপে আবারও অপারেশন করা হয় এবং বর্তমানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে্ন। তার চিকিৎসা বাবদ এ পর্যন্ত হাসপাতালের বিল হয়েছে প্রায় ৩০ হাজার রিংগিত।

এরই মধ্যে প্রবাসে থাকা পরিচিত বাংলাদেশীদের কাছ থেকে প্রায় পাঁচ হাজার রিংগিত নিয়ে তার জন্য খরচ করা হয়েছে। আব্দুল হালিমের পরিচিত ২ ব্যক্তি মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনে যোগাযোগ করলে, দুতাবাস থেকে আব্দুল হালিমের পক্ষে একটি আবেদন জমা দিতে বলেন এবং তা জমা দেয়া হয়।

এদিকে, আবেদনের প্রেক্ষিতে খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে, বাংলাদেশ দুতাবাস। দেশে থাকা তার আত্বীয়রা বাংলাদেশ সরকারের কাছে তার চিকিৎসায় এগিয়ে আসার আঁকুতি জানান।

আব্দুল হালীমের পিতার নাম রাফিউদ্দিন। সুস্থ হয়ে তিনি দেশে ফিরে আসবেন এমন প্রত্যাশায় দিন কাটছে হালিমের স্বজনসহ দেশটিতে থাকা প্রবাসীদের।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close