অন্যান্যবাংলাদেশ

এখনো আঁতকে উঠেন চুড়িহাট্টার বাসিন্দারা

রাজধানীর নন্দ কুমার দত্ত রোডের ৬৪ নম্বর ভবন ওয়াহেদ ম্যানশনের সেই অগ্নিকাণ্ডের এক বছর পার হলেও এখনো ভারী কোনো শব্দ শুনলেই আঁতকে উঠেন চকবাজারের চুড়িহাট্টার বাসিন্দারা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানালেন, সেই দিনের ভয়ঙ্কর দৃশ্য ভাষায় প্রকাশ করার মতো না। আর মুখে বললেও তার ভয়াবহতা প্রকাশ করা যাবে না। এমন দিন যেন আর কারো জীবনে না আসে।

সেদিনের ঘটনায় পঙ্গুত্ব বরণ করেন অনেকেই। তাদেরই একজন ভুক্তভোগী সালাউদ্দিন বলেন, ‘সেই দিনের পর থেকে এখন কোন বিকট শব্দ শুনলেই আঁতকে উঠি। মনে হয় এই বুঝি আবার এমন কোন ঘটনা ঘটলো। এক মুহূর্তের আগুনে সব শেষ হয়ে গেছে।’

এদিকে, ঘটনার পর সরকারি বেসরকারিভাবে অনেকেই সাহায্য সহযোগিতার কথা বললেও বাস্তবে তা পাইনি। আমার জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি নেয়া হলেও এরপর আর কেউ যোগাযোগ করেনি।

আরেক ভুক্তভোগী নিহত রিকশাচালকের স্ত্রী, জেসমিন আরো বলেন, মরদেহ নেওয়ার সময় ২০ হাজার টাকা পাই। যা মরদেহ গ্রামের বাড়িতে নেওয়ার জন্য ১০ হাজার টাকা গাড়ি ভাড়া, ৪ হাজার টাকা হাসপাতাল খরচ ও আরো ২ হাজার টাকা মরদেহ নেওয়ার গাড়ির চালক ও অন্যান্যদের নাস্তা বাবদ খরচ হয়ে যায়। এরপর অনুদানতো দূরের কথা আর কেউ কোন খোঁজ নেয়নি।

এছাড়া, পুরান ঢাকা থেকে যাতে কেমিক্যাল ও প্লাস্টিকের গুদাম সরানো হয় এ জন্য অনেক সংগঠন থেকে বিভিন্ন সময়ে আন্দোলন মানববন্ধন করা হলেও এর কোনো বাস্তবায়ন হয়নি বলে জানান, এলাকাবাসী।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close