বিশ্ববাংলা

১৫ বছরে দেশে এসেছে ৪১ হাজার প্রবাসীর লাশ

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের মৃত্যু হচ্ছে নানা কারণে। ২০০৫ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে, ৪১ হাজার প্রবাসীদের লাশ বাংলাদেশে পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে কুয়েতের বাংলাদেশ দূতাবাসের তথ্যমতে,গত ১৫ বছরে শুধুমাত্র কুয়েত থেকে ২,৮৯২ জন প্রবাসীর লাশ বাংলাদেশে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া স্থানীয়ভাবে দাফন করা হয়, আরো ৩৫ প্রবাসীর লাশ।

কিছুদিন আগে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক একটি মানবাধিকার সংস্থার প্রতিবেদনে বলা হয়, ৯৪ শতাংশ প্রবাসীদের মৃত্যু হয় অস্বাভাবিকভাবে, এদের মধ্যে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে ৩০ শতাংশ, বাকিরা হৃদরোগ, কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনা, সড়ক দুর্ঘটনা, ক্যান্সার, আত্মহত্যা কিংবা প্রতিপক্ষের হাতে খুন।

কুয়েতেও নানা কারণে প্রবাসীদের মৃত্যু হলেও, হৃদরোগ ও স্ট্রোকে মৃত্যুর সংখ্যা বেশি। গত ১৫ বছরে মৃত্যুর মোট সংখ্যার অনুপাতে গড়ে প্রতিবছর ১৯৫ জন ও প্রতি মাসে ১৬ জন প্রবাসী মৃত্যুবরণ করেছেন।

এর জন্য প্রবাসীদের অসচেতনতাই অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যুর মূল কারণ বলে মনে করছেন, কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এস এম আবুল কালাম। এদিকে, একটু সচেতন হলে অনাকাঙ্খিত মৃত্যু প্রতিরোধ সম্ভব বলে মনে করেন, কুয়েতে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত এস এম আবুল কালাম।

বাংলা টিভিতে প্রচারিত, প্রবাসীর ডাক্তার অনুষ্ঠানের উপস্থাপিকা ও লেখক ডাক্তার ফারহানা মোবিন, প্রবাসীদের নানা রোগের চিকিৎসা বিষয়ে প্রতিনিয়ত পরামর্শ দিয়ে আসছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সঠিক সময়ে সমস্যানুযায়ী পদক্ষেপ নিলে মৃত্যুহার অনেকটাই কমে আসবে।

আ হ জুবেদ, কুয়েত প্রতিনিধি 

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close