বিশ্ববাংলা

তিন বছর ধরে কোমায় রয়েছেন প্রবাসী রানা

দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার রানা বাবু, মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমানে একটি সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে, দীর্ঘ তিন বছর ধরে কোমায় রয়েছেন। বাড়িতে এনে চলছে তার চিকিৎসা। চিকিৎসকরা বলছেন, রানা বাবুর সুস্থ হয়ে ওঠার সম্ভাবনা খুবই কম।

এদিকে, ছেলের চিকিৎসায় সরকারের পাশাপাশি বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন, অসহায় বাবা-মা ও এলাকাবাসী।

ঘটনার শুরু ২০১৭ সালে। অভাবের সংসারে সুখের আশায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে, ছেলে রানা বাবুকে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমানে পাঠান ভটভটি চালক আলম হোসেনকে। সেখানে এক সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে কোমায় চলে যায় রানা বাবু। এরপর থেকে দেশে এনে চলছে তার চিকিৎসা।

আশায় থেকে তিনটি বছর কেটে গেলেও, এখনো সুস্থ্ হয়ে ওঠেনি আদরের একমাত্র সন্তান। এমনিভাবে দীর্ঘ তিন বছর ধরে কোমায় রয়েছেন দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার ভটভটি চালক আলম হোসেনের একমাত্র ছেলে রানা বাবু। ছেলেকে বাঁচাতে অবিরাম সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছেন, তার বাবা-মা।

রানা বাবুর চিকিৎসায় প্রতি মাসে ব্যয় হয় প্রায় ৬০ হাজার টাকা। ছেলের চিকিৎসায় সর্বস্ব বিক্রি করে পরিবারটি এখন নিঃস্ব। শুধুমাত্র বাড়িটি ছাড়া আর কিছুই নেই তাদের। ভারতে উন্নত চিকিৎসা করা গেলে, রানা বাবু সুস্থ হয়ে উঠতে পারে বলে আশা করছে পরিবার। যদিও ডাক্তার বলেছেন, রানা বাবুর সুস্থ হয়ে ওঠার সম্ভাবনা খুবই কম।

এ অবস্থার জন্য দায়ী ব্যক্তিদের শাস্তির দাবি করেছেন এলাকাবাসী। সেই সাথে ছেলের চিকিৎসায় সরকারের পাশাপাশি সমাজে বিত্তবানদের এগিয়ে আসারও আকুতি জানিয়েছেন স্বজনরা।

মোঃ কুদ্দুস আলী, হিলি প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close