দেশবাংলা

হোগলা পাতা দিয়ে তৈরি হচ্ছে নানারকম শোপিচ

ভোলার বিভিন্ন গ্রামের নারীরা হোগলা পাতা দিয়ে তৈরি করছেন দড়ি। সেই দড়ি পাইকাররা বিক্রি করছেন ঢাকার পাইকারী বাজারে। আর ঢাকায় এসব দড়ি দিয়ে তৈরীকৃত নানারকম শোপিচ-আসবাবপত্র চীন, জাপান, কানাডাসহ বিশ্বের ৭৪টি দেশে বিক্রি হচ্ছে।

দড়ি বিক্রি করে পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও সংসারে অর্থের যোগান দিচ্ছেন। তবে স্থায়ীভাবে ভোলায় সরাসরি আসবাবপত্র তৈরিতে সরকারের সহযোগিতা চান কারীগররা।

ভোলা সদরের জয়নগর, বালিয়া, বাপ্তা, ইলিশা, রতনপুর, শিবপুর, রাজাপুর, তুলাতুলিসহ, বেশ কয়েকটি গ্রামের প্রায় ২০ হাজার নারী, বিভিন্ন চরাঞ্চল থেকে হোগলা পাতা সংগ্রহ করছেন। সেই পাতা রোদে শুকিয়ে হাতে পাকিয়ে সুতলি তৈরি করছেন। সুতলি দিয়ে বানাচ্ছেন দড়ি।

এভাবে গ্রামের অধিকাংশ নারী, পুরুষে পাশাপাশি অর্থ উপার্জন করে নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন করছেন। তবে ভোলায় সরাসরি এসব আসবাবপত্র তৈরির ব্যবস্থা থাকলে আর্থিকভাবে আরো বেশি লাভবান হওয়া সম্ভব হতো বলে জানান, কারিগররা।এজন্য তারা সরকারিভাবে উদ্যোগের দাবি জানান।

প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ভোলার নারীরাই যাতে দড়ি দিয়ে আসবাবপত্র তৈরী করে বিদেশে রপ্তানি করতে পারে, সে বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার।

প্রতি ১ হাজার হাত দড়ি পাইকারদের কাছে বিক্রি করা হয় ১৬০ টাকায়। আর এতে সময় লাগে ২ থেকে ৩ ঘন্টা। সংসারের কাজের ফাঁকে একজন নারী, প্রতিমাসে দড়ি তৈরি করে ৪ থেকে ৫ হাজার টাকা আয় করতে পারছেন।

জুয়েল সাহা বিকাশ, ভোলা প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close