দেশবাংলা

১০ বছরেও দূষণ মুক্ত হয়নি শুভাঢ্যা খালটি

কেরানীগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী শুভাঢ্যা খালটি, গত ১০ বছরে কয়েক কোটি টাকা ব্যয়ে একাধিকবার খনন ও অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ অভিযানের পরও, দূষণ মুক্ত হয়নি। তবে চলতিবছর এ খালটি দখলদারদের হাত থেকে মুক্ত করে, হাতিরঝিলের আদলে পরিবেশ ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

শুভাঢ্যা খালটি, আগানগর এলাকা থেকে শুরু করে শুভাঢ্যা হয়ে, তেঘরিয়া ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুর পাইনার চর খালের সঙ্গে যুক্ত হয়ে ধলেশ্বরী নদীর সঙ্গে মিলিত হয়েছে। ১৪ কিলোমিটারের খালটি ভূমিদস্যুদের দখল ও স্থানীয়দের ফেলা ময়লা আর্বজনায় ইতোমধ্যে অস্তিত্ব বিলিন হওয়ার পথে।

২০০৭ সালে যৌথ বাহিনী কেরানীগঞ্জের বুড়িগঙ্গা নদীর সংযোগস্থল পূর্ব আগানগর থেকে কালিবাড়ী পর্যন্ত, এ খালের ৩ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে উচ্ছেদ অভিযান চালায়। এরপর ২০১২ সালে উপজেলা প্রশাসন ৫৪ লাখ ৮৮ হাজার টাকা ব্যায়ে খালটি সংস্কার করে। দারিদ্র বিমোচন কর্মসূচি ও কাবিখা প্রকল্পের আওতায় বর্জ্য অপসারণ ও নাব্যতা ফেরাতে, ব্যয় হয় আরও ২০ লাখ টাকা।

২০১৪ সালে জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ড প্রকল্পের আওতায় খালটি পুনখনন ও তীর সংরক্ষণের জন্য ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। এতে কাজের কাজ  হয়নি কিছুই। খাল রক্ষায় সবধরনের ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানায়, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিত দেব নাথ।

শুভাঢ্যা খালকে হাতিরঝিলের আদলে তৈরি করা হবে জানিয়ে, উভয় পাশের ভবন ভেঙে সৌন্দর্য বৃদ্ধি ও খালের স্বাভাবিক প্রবাহ ফিরিয়ে আনা হবে জানিয়েছেন, কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ।

খালটি উদ্ধার এবং দৃষ্টিনন্দন করতে ১২৯০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। তাই প্রভাবশালীদের হাত থেকে দ্রুত খালটির দখল ও দূষণমুক্ত করে, পানি প্রবাহ স্বাভাবিক করার দাবী কেরানীগঞ্জবাসীর।

আরিফুল ইসলাম, কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close