দেশবাংলা

মাকে হত্যায় সন্তানের মৃত্যুদন্ড

কুষ্টিয়া দৌলতপুরে কোদালের কোপে নৃশংস ভাবে মা’কে হত্যা অভিযোগে পিতার করা হত্যা মামলায় পুত্রের মৃত্যুদন্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় কুষ্টিয়া জেলা ও জায়রা জজ আদালতের বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী আসামীর উপস্থিতিতে জনাকীর্ণ আদালতে এই রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত হলেন- দৌলতপুর উপজেলার আংদিয়া গ্রামের আজিজুল সরদারের ছেলে জুয়েল সরদার (২৮)।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১সালের ২২ সেপ্টেম্বর, দুপুর সাড়ে ১২টায় জমিজমা সংক্রান্ত দ্বন্দে সৃষ্ট ও বিবদমান পারিবারিক কলহের জের ধরে উত্তেজনার এক পর্যায়ে আসামী জুয়েল রানা তার মা বানেরা খাতুন ওরফে বানুকে হাসুয়া দিয়ে কুপিয়ে জখম করে।

এসময় হাসুয়া ভেঙ্গে গেলে পাশে থাকা কোদাল দিয়ে কুপিয়ে ক্ষত বিক্ষত রক্তাক্ত জখম করে হত্যা করে। এঘটনায় নিহত বানেরা খাতুনের স্বামী এবং আসামী জুয়েল রানার পিতা আজিজুল সরদার দৌতলপুর থানায় একমাত্র আসামী জুয়েল রানার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ১ জানুয়ারী হত্যাকান্ডের দায়ে অভিযোগ এনে দ:বি: ৩০২ধারায় আদালতে চার্জশীট দেয় পুলিশ।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌশুলী এ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী জানান, নিজ গর্ভধারিনী মা’কে নির্মম ভাবে হাসুয়া এবং কোদাল দিয়ে কুপিয়ে হত্যার মতো হৃদয়স্পর্শী ঘটনা বিজ্ঞ আদালতকেও নাড়া দিয়েছে।

এমামলায় রাষ্ট্রপক্ষের ১৫জন স্বাক্ষির স্বাক্ষ্য শুনানী শেষে নিহত মা বানেরা খাতুনের ছেলে আসামী জুয়েল রানার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীত প্রমানিত হওয়ায় হত্যাদায়ে সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদন্ডের রায় দিয়েছেন আদালত।

এম.লিটন-উজ-জামান, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close