অপরাধবাংলাদেশ

পুলিশের রিমান্ড শেষ হলে, আবেদন করবে র‍্যাব

পুলিশের রিমান্ড শেষ হলে, বহিষ্কৃত মহিলা যুব লীগ নেত্রী পাপিয়াকে রিমাণ্ডে নেয়ার আবেদন করবে র‍্যাব। এমনটিই জানিয়েছে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেম। পাপিয়ার অপরাধের সঙ্গে জড়িত কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। সময় থাকতেই আত্মসমর্পনের আহ্বান জানানোও তিনি।

আইনশৃংখলা বাহিনীর অভিযানে গ্রেফতারের পর, সদ্য বহিষ্কৃত নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীমা নূর পাপিয়া। অনেকের কাছে পরিচিত পিউ নামে। রাজনৈতিক নেত্রী হিসেবে জানতেন তাকে। কিন্তু এসবের আড়ালে মুলত অবৈধ অস্ত্র, চাঁদাবাজি, অনৈতিক কর্মকাণ্ড, জাল নোট সরবরাহ, রাজস্ব ফাঁকি, মাদক, দেহব্যবসা ও অর্থ পাচারসহ নানা অপরাধ ছিল তার মূল পেশা।

২০০৬ সালে নরসিংদী সরকারি কলেজে পড়ার সময় পাপিয়ার সঙ্গে মফিজুরের সম্পর্ক হয়। ২০০৯ সালে তাঁরা বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই তাঁরা স্থানীয় রাজনীতিতে সক্রিয় হয়ে ওঠেন। ২০১০ সালে পাপিয়াকে নরসিংদী শহর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক হয়।

সর্বশেষ ২০১৮ সালে জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক পদ পায় পাপিয়া। এর মাঝেই গড়ে অপরাধ জগতের বিশাল নেটওয়ার্ক। ৩ মামলায় পাপিয়া এখন পুলিশের রিমাণ্ডে। তার এসব কাজের তত্ত্বাবধানে ব্যাবসায়ী সহযোগী ছিল স্বামী মতি সুমন, তায়্যিয়া ও সাব্বির।

র‍্যাব বলছে, পুলিশের রিমাণ্ড শেষ হলে পাপিয়াকে তারা রিমাণ্ডে নেয়ার আবেদন করবে। পাপিয়ার অবৈধ অর্থ উপার্যনে যার যার নামই আসুক এবং যে দলেরই হোক, র‍্যাব কাউকেউ ছেড়ে কথা বলবে না বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছে র‌্যাব।

এছাড়াও, পাপিয়ার অপরাধ নেটওয়ার্ক নিয়ে বিশদ অনুসন্ধান চালানো হচ্ছে জানিয়ে জড়িতদের সময় থাকতে আত্মসমর্পণের আহবান জানিয়েছে র‌্যাব।

মাসুদ সুমন, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close