দেশবাংলা

স্ত্রীর মার খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা স্বামীর

টাঙ্গাইলের সখীপুরে বাবা-মায়ের সামনে স্ত্রীর হাতে মার খেয়ে লজ্জায় বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। উপজেলার যাদবপুর ইউনিয়নের নলুয়া দক্ষিণপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আশরাফ কাজী (৩৫) নামের ওই ব্যক্তি সাইকেল কারখানার শ্রমিক।

পরে স্বজনেরা তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় আশরাফকে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। আশরাফ কাজী উপজেলার নলুয়া গ্রামের ওমর কাজীর ছেলে।

সখীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এএইচএম লুৎফুল কবির বলেন, কোনো পুরুষ স্ত্রীর হাতে নির্যাতিত হয়ে থানায় অভিযোগ করলে সেগুলোও আমলে নেয়া হবে। তবে এ বিষয়ে থানায় কেউ অভিযোগ করেননি।

তিন বছর আগে আশরাফ কাজী টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার গোড়াই এলাকায় একটি বাই সাইকেল কারখানায় কাজ নেন। ওই কারখানার নারী শ্রমিক রোকসানার প্রেমে পড়ে দ্বিতীয় বিয়ে করেন আশরাফ। ১৫ দিন আগে স্ত্রীর নির্যাতন সইতে না পেরে কারখানার চাকরি ফেলে আশরাফ কাজী গ্রামের বাড়ি সখীপুরের নলুয়ায় চলে আসেন তিনি।

রোববার সকালে দ্বিতীয় স্ত্রী রোকসানাও স্বামী আশরাফের খোঁজে গ্রামে চলে আসেন। এসময় আশরাফের মা-বাবার সামনেই রোকসানা তার স্বামীকে চুলে ধরে চর-থাপ্পড় মারতে থাকেন। এক পর্যায়ে আশরাফ ঘর থেকে কীটনাশকের বোতল এনে স্ত্রীর সামনেই খেয়ে ফেলেন।

বিষ খাওয়ার সময় আশরাফ উচ্চ কণ্ঠে বাবা-মা ও ভাইয়ের কাছে স্ত্রীর দ্বারা কখন কীভাবে নির্যাতিত হয়েছেন সেসব কাহিনী বর্ণনা করতে থাকেন। এ দৃশ্য দেখে বাবা-মা ও ভাইয়েরা রোকসানার ওপর ক্ষেপে গেলে রোকসানা পালিয়ে যান। পরে স্বজনরা আশরাফ কাজীকে মুমূর্ষু অবস্থায় সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close