অন্যান্যবাংলাদেশ

৭ মার্চের ভাষণই মুক্তি এনে দিয়েছিল পরাধীন বাঙালিকে

আজ ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। বাঙালি জাতির স্বাধীনতার সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা অবিস্মরণীয় গৌরবের এক অনন্য দিন। ১৯৭১ সালের এই দিনে ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক উত্তাল জনসমুদ্রে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন।

শনিবার সকাল থেকেই মানুষের ঢল নামে রেসকোর্স ময়দানে। বেলা ঠিক সোয়া ৩টায়। সাদা পাজামা-পাঞ্জাবির ওপর কালোকোর্ট পরিহিত বঙ্গবন্ধু যখন মঞ্চে উঠলেন, তখন বাংলার বীর জনতার করতালি আর স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে গোটা এলাকা।

প্রায় ২০ মিনিট ঐতিহাসিক ভাষণে দিনের ঘটনাবলি, শাসকশ্রেণির সঙ্গে আলোচনা ফলপ্রসূ না হওয়া এবং মুক্তির আকাঙ্ক্ষায় বাঙালির দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের ইতিহাস তুলে ধরে বঙ্গবন্ধু পরবর্তী আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

এ ভাষণই ভিত গড়ে দেয় বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ভিত। সেদিন বঙ্গবন্ধুর ভাষণ দেশের জনগণকে দারুণভাবে আন্দোলিত করেছিল। এই একটি ভাষণেই নিরস্ত্র নিরীহ বাঙালিকে বীরের জাতিতে পরিণত করেন বঙ্গবন্ধু।

ঐতিহাসিকরা মনে করেন ৭ মার্চের ভাষণই মুক্তি এনে দিয়েছিল দীর্ঘ দিনের পরাধীন এ বাঙালি জাতিকে, তাই সারা বিশ্বে প্রেরণার চিরন্তন উৎস হয়ে থাকবে বঙ্গবন্ধুর এ ভাষণ।

বুলবুল আহমেদ, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close