অন্যান্যবাংলাদেশ

রাজধানীর অনেক হাসপাতালেই নেই করোনা আইসোলেশন ইউনিট

বিশ্বব্যাপী দ্রুত ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত, ভুটান ও নেপালে। বাংলাদেশে এখনো এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী পাওয়া না গেলেও উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এ অবস্থায় সরকারি-বেসরকারি সব হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিট করা নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। তবে রাজধানীর কয়েকটি হাসপাতাল ঘুরে দেখা গেছে, এখনো সেরকম ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়নি।

চীনে দেখা দেয়া করোনাভাইরাস এরইমধ্যে  ছড়িয়ে পড়েছে বাংলাদেশের পার্শ্ববর্তী নেপাল, ভুটান এবং ভারতেও। করোনা সন্দেহে বাংলাদেশে এপর্যন্ত ৫ জনকে আইসোলেশন ইউনিটে রাখা হলেও, কেউ এখনো আক্রান্ত হয়নি। তবে ভাইরাস প্রতিরোধে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে সরকার।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর দাবি করছে, দেশের সকল ৫০ থেকে ১০০ শয্যার হাসপাতালে পাঁচটি এবং আরো বেশি ধারণক্ষমতার হাসপাতালে ১০ শয্যাবিশিষ্ট আইসোলেশন ইউনিট প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

এদিকে, রাজধানীর বেশকিছু হাসপাতালে ঘুরে দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র। গত ১৩ ফেব্রুয়ারি দেশের বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিকগুলোকেও আইসোলেশন ইউনিট করতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর নির্দেশ দিলেও, এখনো তৎপরতা নেই বেশীর ভাগ হাসপাতালে। বেশকিছু হাসপাতাল আইসিইউ ইউনিটকে আইসোলেশন ইউনিট হিসেবে রুপান্তরিত করার কথা ভাবছেন বলে জানালেন, সেখানকার কর্তৃপক্ষ।

অনেকে আবার হাসপাতালের পরিত্যাক্ত রুমকেই আইসোলেশন ইউনিট বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। করোনায় ঝুঁকির কথা বিবেচনায় রেখে, সব হাসপাতাল যথাযথ প্রস্তুতি নেবে এমনটিই সবার প্রত্যাশা।

মাসুদ সুমন, বাংলা টিভি

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close