অন্যান্যবাংলাদেশ

বর্ণিল আলোকসজ্জায় সেজেছে ঢাকা

মুজিব বর্ষের আয়োজনকে ঘিরে রঙিন হয়ে উঠেছে রাজধানী ঢাকা। রাস্তার দুই পাশ ও মোড়ে মোড়ে শোভা পাচ্ছে বাহারি রংয়ের আলোর ঝলকানি। ১৭মার্চ জাতির জনকের জন্ম শতবার্ষিকী পালন করবে গোটা দেশ। তবে করোনা ভাইরাসের কারণে আয়োজনে কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে ।

ইতিমধ্যে দিবসটি সামনে রেখে সাজানো হয়েছে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের বিভিন্ন স্থাপনা। এ আয়োজনে বাড়তি যোগ হয়েছে আলোকসজ্জা। গত কয়েকদিন ধরে ঢাকা রূপ নিয়েছে আলোর নগরীতে।

 

নগরীর প্রধান সড়ক, স্থাপনাগুলোয় শোভা পাচ্ছে বাহারি রঙের আলো। বর্ণিল আলোকসজ্জায় চোখ জুড়িয়ে যাচ্ছে। বাদ যায়নি রাস্তার মোড়, ল্যামপোস্টও। আর এ দৃশ্য দেখতে মধ্যরাতেও এসেছেন অনেকে। শুধু সড়ক নয়, আলোর ঝলকানিতে মেতে উঠেছে ব্যাংক-বীমাসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তর ও পাচঁতারকা হোটেলগুলোসহ অলিগলি ও সরকারি দলের কাবগুলো। নগরবাসিও বেশ উপভোগ করছেন এমন দৃশ্য।

 

বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীর এমন আয়োজন দেখতে পেয়ে অনেকেই জানিয়েছেন তাদের সন্তুষ্টির কথা। মুজিব বর্ষের সকল আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতি যথাযথ সম্মান জানানোর পাশাপাশি নতুন প্রজন্ম বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস জানবে এমনটাই প্রত্যাশা আলোকসজ্জা দেখতে আসা দর্শনার্থীদের।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে নতুন সাজে সেজেছে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন সড়ক, স্থাপনা, অফিস-আদালত। সন্ধ্যার পরই লাল-সবুজের আলোতে ঝলমলিয়ে ওঠে পুরো রাজধানী। চোখ ধাঁধানো এ আলোকসজ্জার ঝলকানিতে মন কেড়েছে সবার।

রাজধানীর ব্যাংকপাড়া মতিঝিল, পল্টন, দৈনিক বাংলা, গুলিস্তানসহ বিভিন্ন এলাকায় গুরুত্বপূর্ণ ভবনগুলো আলোকসজ্জা করা হয়েছে। বিভিন্ন রঙের ও বর্ণের এসব আলোকসজ্জা উৎসবমুখর পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। ব্যাংলাদেশে ব্যাংকের গভর্নর ভবনে চোখ ধাঁধানো আলোকসজ্জা করা হয়েছে।

ভবনে বাতি ঝলমলিয়ে ফুটে উঠছে লাল-সবুজের জাতীয় পতাকা, সামনে স্মৃতিসৌধ, একপাশে অস্ত্র হাতে মুক্তিযোদ্ধারা অন্যপাশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতীকী ছবি। এছাড়া মতিঝিল শাপলা চত্বর এলাকায় সোনালী ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক, কৃষি ব্যাংক, জীবন বীমা ভবনসহ বড় বড় স্থাপনা সাজানো হয়েছে। রাস্তার দুই পাশের গাছে গাছে বাহারি আলোকরশ্মি। সাদা, লাল, নীল, সোনালী হরেক রঙের মরিচবাতি।

এদিকে, পুরো এলাকায় বিভিন্ন রংয়ের আলোকসজ্জায় সাজানো হয়েছে সংসদ ভবন। তাই পাল্টে গেছে সংসদ ভবন এলাকার চিত্র। সংসদ সচিবালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় পিক্সেল ম্যাপিংয়ে ভেসে উঠবে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ।

এছাড়া লেজার শো’র মাধ্যমে ভেসে উঠবে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক নৌকা। সংসদের লেকের মাঝখানে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের সেই আঙুল উঁচিয়ে দেওয়া ভাষণের প্রতিচ্ছবি লেজার শোর মাধ্যমে দেখানো হবে। এছাড়া সংসদের দক্ষিণ-পশ্চিম কোণের মাঠে স্থাপন করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু কর্নার।

অনুষ্ঠানে ১৯৫২ সাল থেকে শুরু করে ১৯৭২ সাল পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর ভূমিকাগুলো তুলে ধরা হবে। এরইমধ্যে সংসদ ভবনের লেকের পাড়ে প্রতিটি দেয়ালে লাইটিংয়ের মাধ্যমে নৌকার প্রতিচ্ছবি দেখা যাচ্ছে। এছাড়া সংসদে প্রবেশের প্রতিটি পথেই বিভিন্ন রঙয়ের পতাকা দিয়ে সাজানো হয়েছে।

এছাড়া দক্ষিণ প্লাজার অনুষ্ঠানও সর্ব সাধারণের জন্য উন্মুক্ত নয়। নির্ধারিত গণমাধ্যম ওখান থেকে সরাসরি সম্প্রচার করবে, আর সেই অনুষ্ঠান টিভির মাধ্যমে উপভোগ করবে সারাদেশের মানুষ।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close