দেশবাংলা

নিত্যপণ্যের দাম বাড়ানোয় বিভিন্নস্থানে জরিমানা

দেশের বিভিন্নস্থানে করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পণ্যের দাম বেশি রাখা ও কৃত্রিম সংকট তৈরির অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

শুক্রবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আলমগীর হোসেন এর নেতৃত্বে, পুরাতনবাজারে একতা শস্য ভান্ডারে অভিযান চালিয়ে পিঁয়াজের দাম বৃদ্ধি ও বিক্রয়কৃত রশিদে অসামঞ্জস্য মূল্য থাকায় ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

কুমিল্লায় নিত্যপণ্যের মজুদ ও মূল্যবৃদ্ধির অভিযোগে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অভিষেক দাম, জেলার লাকসাম ও মুরাদনগরে অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ৪লাখ টাকা জরিমানা করেন। গোপালগঞ্জে চাল ও পেঁয়াজের দাম বেশী রাখার অভিযোগে, তিনটি প্রতিষ্ঠানকে ১ লাখ ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সকালে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জোবায়ের রহমান রাশেদ তিনটি প্রতিষ্ঠানকে এ জরিমানা করেন।

জামালপুরে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি ও মূল্য তালিকা সঠিক না থাকায় ৫ ব্যবসায়ীকে ৩৬ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন,ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফরিদা ইয়াসমীন। সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জগন্নাথপুর পৌরশহর বাজারে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াসির আরাফাতের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ৭টি প্রতিষ্ঠানকে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নরসিংদী পাইকারী বাজারে জেলা প্রশাসনের নেযারত ডেপুটি কালেক্টর শাহরুখ খান ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাখাওয়াত জামিল সৈয়ত অভিযান পরিচালনা করেছেন।টাঙ্গাইলে ১৩ জন ব্যবসায়ীকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। শহরের পার্ক বাজারে যৌথভাবে অভিযান পরিচালনা করেন, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আতিকুল ইসলাম ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুখময় সরকার।

অপরদিকে, ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার কৃষ্ণপুর বাজারে মূল্য তালিকা না রাখার অপরাধে, দুই চাল ব্যবসায়ীকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অভিযান পরিচালনা করেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট সজল চন্দ্র শীল।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close