দেশবাংলা

খাদ্য সংকটে দিনমজুর, ত্রাণ সহায়তা পর্যাপ্ত নয়

করোনা সুরক্ষায় হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা দিনমজুররা রয়েছেন খাদ্য সংকটে। সরকারি-বেসরকারিভাবে খাদ্য সামগ্রী সরবরাহ করা হলেও, তা পর্যাপ্ত নয়। অনেক এলাকায় মুখ চিনে ত্রাণ সহায়তা দেয়ার অভিযোগও উঠেছে। আবার কোথাও কোথাও এখনো পৌঁছেনি ত্রাণ সহায়তা।

এতে নিম্নআয়ের মানুষ রয়েছেন খুব কষ্টে। করোনা থেকে নিজে এবং অন্যকে সুরক্ষায় বাইরে যাচ্ছেননা লালমনিরহাটের চুরিপট্টির ভ্রাম্যমান ফেরিওয়ালারা। ব্যবসা বন্ধ হওয়ায় সরকারি খাস জমিতে থাকা চুরিপট্টির ১৬০টি পরিবার রয়েছে অনাহারে অর্ধাহারে।

পাশাপাশি তাদের ভাগ্যে জোটেনি সরকারি অথবা বেসরকারি কোন ত্রাণ সহায়তা। কর্মহীণ হয়ে ধুকছে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ভাটপাড়া আবাসন প্রকল্পের ৯০টি পরিবারের বাসিন্দারা। ভাটপাড়া নীলকুঠি এলাকায় ২০০৫ সালে ছিন্নমুল মানুষের জন্য নির্মিত হয় এ প্রকল্পটি।

এখানে আশ্রয় নিয়েছে তিন শতাধিক দিনমজুর ও ভিক্ষুক।বিশাল এ জনগোষ্ঠি পায়নি সরকারী বা বেসরকারী ত্রাণ। নরসিংদী সদর উপজেলার ৪টি ও রায়পুরার ৮ ইউনিয়নের চরাঞ্চলে বসবাস করেন বিশাল জনগোষ্ঠি।

করোনারোধে ঘরে থাকার নির্দেশ দেয়া হলেও, চরাঞ্চলবাসী খাবারের অভাবে ঘরে থাকছেন না। ফলে, বাড়ছে করোনা ঝুঁকি। তবে, হতদরিদ্র এসব মানুষ পর্যায়ক্রমে খাদ্যসামগ্রী পাবে বলে জানান, জেলা প্রশাসক।

কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলা নদীবেষ্টিত চরাঞ্চলীয় অঞ্চল।করোনা আতঙ্কে গৃহবন্দী ৩ লাখ মানুষের জন্য এখনো পৌঁছেনি সরকারী অনুদান। দরিদ্রদের পাশে নেই কেউ। ইতোমধ্যে কিছু খাদ্য সামগ্রি বিতরণ করা হয়েছে। তবে সেটা প্রয়োজনের তুলনায় কম বলে জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

এদিকে,নারায়ণগঞ্জে ত্রাণের দাবিতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও উপজেলা অফিস ঘেরাও করে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে অর্ধশতাধিক কর্মহীন মানুষ।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close