অন্যান্যবাংলাদেশ

ফাঁকা রাজধানী : এক অন্যরকম বৈশাখ উদযাপন

৫০ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম রমনার বটমূলে বেজে উঠেনি সম্প্রীতির সুর। পুরো বটমূল এলাকা একেবারে নীরব। করোনা মহামারীর মধ্যে এবার যেন অচেনা এক বাংলা নববর্ষ। রাজধানীতে নেই সেই চিরচেনা উৎসব। মানুষের মাঝে নেই আনন্দ কিংবা উৎসবের আমেজ। নগরীর কোথাও এবার আঁকা হয়নি বৈশাখের আলপনা। ফাঁকা চারুকলাও।

করোনাভাইরাসের ফলে ঘরে বসে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ঘরোয়া আমেজেই বৈশাখ পালন করছে বাঙালি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ঘরে থেকেই চলছে বৈশাখ উদযাপন। সব মিলিয়ে উৎকণ্ঠ আর শঙ্কার মধ্যেই কাটছে এবারের পহেলা বৈশাখ।

আবহমান বাংলার জমিন জুড়ে বৈশাখের প্রথম সকালের আবেদন চিরায়ত। রমনা বটমূলে প্রাণের সুর, লেকের জল, অশ্বথের পাতা আর প্রাণ প্রকৃতি ছুঁয়ে পৌঁছে যায় প্রতিটি বাঙালির অন্তরে।

এবার থমকে গেছে সব। অতি ক্ষুদ্র এক জীবাণুর কাছে পুরো বিশ্ব যখন অসহায় তখন বাঙালির প্রাণের বৈশাখের আয়োজন অনেকটা মন খারাপেরই বার্তিই দেয়। তবুও ঘরে বসে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ঘরোয়া আমেজেই বৈশাখ পালনের কথা বলছেন অনেকেই।

১৪২৭ বছরের শুরুটা এই রকম হবে এটা হয়তো বাঙালির কল্পনাতেও ছিলো না। কিন্তু এটাই এখন বাস্তবতা। তবু কালো মেঘ সরে দ্রুত আসবে রৌদ্রজ্জ্বল দিন। বৈশাখে এমনটাই প্রত্যাশা কোটি বাঙালির। করোনাভাইরাস সংক্রমন ঠেকাতে পহেলা বৈশাখের সকল ধরণের সামাজিক অনুষ্ঠান বন্ধের নির্দেশনায় তাই ঘরোয়া আয়োজনে চলছে পহেলা বৈশাখ উদযাপন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে থাকচে উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর আয়োজন।

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close