বিশ্ববাংলা

প্রবাসীদের পাশে দাড়িয়েছেন বাংলাদেশি বাবুর্চি রনি

বিশ্বজুড়ে করোনায় যে কয়েকটি দেশে সিংহভাগ মানুষ মারা গেছেন স্পেন তার অন্যতম। পশ্চিম ইউরোপের দেশ স্পেনে স্বজন হারানোর শোকে এখনো বাতাস ভারী হয়ে আছে।লকডাউনে উৎপাদন ও বন্টন বন্ধ থাকায় বেকার হয়ে পড়েছে বিপুল সংখ্যক মানুষ।

খাদ্য, বাসস্থানসহ নানা সংকট দেখা দিয়েছে প্রবাসীদের মধ্যে। এমন সংকটের দিনে খাদ্যসাহায্য নিয়ে প্রবাসীদের পাশে দাড়িয়েছেন বাংলাদেশী বাবুর্চি রনি।

করোনা আক্রান্তের দিক থেকে এখন বিশ্বের শীর্ষে থাকা তিনটি দেশ হলো যুক্তরাষ্ট্র, ইতালী এবং স্পেন। বিপুল সংখ্যক মানুষকে হারিয়ে এবং লকডাউনে দীর্ঘদিন ধরে উৎপাদন ও বন্টন বন্ধ থাকায় স্পেনের জনসাধারণ এখন শারীরিক ও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত। সঞ্চয় ফুরিয়ে আসায় প্রবাসীরা ক্রমেই হারাচ্ছে খাদ্য ও বাসস্থানের নিশ্চয়তা।

দেশে টাকা পাঠানো বা দেশ থেকে টাকা আনা, কোনোটাই বর্তমান পরিস্থিতিতে সম্ভব হচ্ছেনা। তাই সীমাহীন দুশ্চিন্তা আর অনিশ্চয়তায় কাটছে প্রবাসীদের একেকটা দিন। এমন দুর্দিনে অনেকটা দ্বিধা নিয়েই বাংলাদেশের শেফ রনি ও তার সহকর্মীরা অসহায় মানুষের মধ্যে খাদ্য বিতরণের পরিকল্পনা করেন।

প্রথমদিকে তাদের আত্মবিশ্বাস খুব দুর্বল থাকলেও বর্তমানে তারা প্রতিদিন ১০০০ দুস্থ মানুষকে ত্রাণ সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন। হন্ডুরাস, আর্জেন্টিনা, বাংলাদেশ, ইন্ডিয়া, নেপালসহ বেশকয়েকটি দেশের সহকর্মীদের সাথে নিয়ে রান্না করে ছোট ছোট ফুডবক্সে ভরে নিজহাতে এসব খাবার দুর্গতদের মধ্যে পৌছে দিচ্ছেন বাংলাদেশের নামকরা শেফ রনি।

রনি জানান, প্রথমদিকে এ কাজে আত্মবিশ্বাসের কমতি থাকলেও বিতরণের সময় ক্ষুধার্ত মানুষের মুখের হাসি আর তাদের ধন্যবাদ রনি এবং তার সহকর্মীদেরকে অনেক অনুপ্রেরণা দিয়েছে । তারা এখন প্রতিদিন নিষ্ঠার সাথে এক হাজার মানুষের মধ্যে খাবার বিতরণের কাজ করে যাচ্ছেন।

ফুড ফর গুড নামে তাদের এই প্রকল্প সম্পর্কে রনি বলেন, আমাদের এই খাবার খেয়ে মানুষের রোগ সেরে যায়না ঠিকই, তবে আমাদের মনের রোগ তো সেরে যায়। আর দুঃখী মানুষগুলোর সময় কেটে যায় তৃপ্ততায়।

বাংলা টিভি/রাসেল

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button
Close