বাংলাদেশঅন্যান্যহেলথ টিপস

বসুন্ধরা আইসোলেশন সেন্টারের সরঞ্জাম সঠিকভাবে বণ্টন করা হয়েছে

বসুন্ধরা আইসোলেশন সেন্টারের সকল সরঞ্জাম সরকারি বিধি মোতাবেক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বণ্টন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা.আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম। সকালে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মলনে মহামারি করোনার এই ক্লান্তি লগ্নে নেতিবাচক সংবাদ পরিবেশন না করে সাংবাদিকদের কাছে সকল ধরনের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

গত বছর করোনা মহামারি শুরুর পর চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উদ্যোগে রাজধানীর বসুন্ধরায় ২০০০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার নির্মিত হয়। পাশাপাশি মহাখালীর ডিএনসিসি মার্কেটে আইসোলেশন সেন্টার করা হয়।পরবর্তীতে কোভিড সংক্রমণ কমে গেলে বন্ধ হয়ে যায় এ দুটি সেন্টারের কাযক্রম।

তবে, সম্প্রতি করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরুর পর সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়ে যাওয়ায়  ঐ দুটি আইসোলেশন সেন্টারের সার্বিক অবস্থা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে নানা তথ্য বের হয়।যেখানে সরকারি অর্থে নির্মিত বসুন্ধরা আইসোলেশন সেন্টারটি গায়েব হয়ে যাওয়া এবং ডিএনসিসির আগের সেন্টার চালু না করেই নতুন করে সেখানে সরকারি অর্থ ব্যয়ে হাসপাতাল নির্মাণ প্রকল্প নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠে।

এমন পরিস্থিতিতে দুপুরে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন,স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা.আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম ।

এ সময় বসুন্ধরা আইসোলেশন সেন্টারে গায়েব হয়েছে এমন সংবাদ প্রসঙ্গে তিনি জানান,করোনার প্রদুরভাব কমে যাওয়ায় পর সরকারি বিধি মেনে সেখানকার সকল সরঞ্জাম দেশের বিভিন্ন হাতপাতালে সরবরাহ করা হয়েছে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আঘাত হেনেছে তাই চিকিৎসকসহ করোনা মোকাবেলায় যারা কাজ করছে তাদের নিয়ে ইতিবাচক ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রচারের আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এ সময় করোনার টিকা প্রাপ্তি নিয়ে কোন জটিলতা হবে না বলেও জনগণকে আশ্বস্ত করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ডাঃ সেব্রিনা ফ্লোরা।

বাংলাটিভি/শহীদ

সংশ্লিষ্ট খবর

Back to top button